বৃহস্পতিবার, ২৬ নভেম্বর ২০২০, ০৩:৫০ পূর্বাহ্ন

সর্বশেষ সংবাদ
ভক্তদের কাঁদিয়ে না ফেরার দেশে পাড়ি জমালেন কিংবদন্তি ফুটবলার বিদ্যালয়ের জায়গা জোরপূর্বক দখল ও চারা রোপন কৈতক ট্রমা সেন্টার নির্মাণ কাজের উদ্বোধন করেন এমপি মানিক ছাতকে কুইজ প্রতিযোগিতায় বিজয়ীদের মধ্যে পুরস্কার বিতরণী সম্পন্ন জমির খাজনা অনলাইনে ছাতক উত্তর সুরমা প্রবাসী কল্যাণ সোসাইটির অাত্মপ্রকাশ ছাতকে অানুষ্টানিক ভাবে উদ্বোধন হলো খাঁজা ট্রাভেলস যদি আমাকে ভালোবাসিস, তবে সুরা ইয়াসিন পড়ে দোয়া করিস সুনামগঞ্জ জেলা আইনশৃঙ্খলা কমিটির সভা অনুষ্ঠিত তাহিরপুরে পরিবেশ ও হাওর উন্নয়ন সংস্থার উদ্যোগে বৃক্ষরোপণ তাহিরপুরে মাদ্রাসায় নিয়োগে অনিয়ম- ৩০ লক্ষ টাকা ঘুষের অভিযোগ  দোয়ারাবাজার উপজেলা নির্বাহী অফিসার করোনায় আক্রান্ত সুনামগঞ্জের দোযারাবাজারে ধর্ষণের অভিযোগে ধর্ষক আটক(১) সাংবাদিক আরিফুর রহমানের পিতার মৃত্যুতে শোক প্রকাশ জন প্রশাসনের অতিরিক্ত সচিবের সাথে মতবিনিময়
চুনারুঘাটে নিরিহ পরিবারের উপর হামলা, কলেজ ছাত্রীসহ আহত ২

চুনারুঘাটে নিরিহ পরিবারের উপর হামলা, কলেজ ছাত্রীসহ আহত ২

শেয়ার করুনঃ

 

হবিগঞ্জ জেলা প্রতিনিধিঃ হবিগঞ্জের চুনারুঘাট উপজেলার শানখলা ইউনিয়নের লালচান তাজপুর টিলায় রাস্তার উপর বাঁশ কাটা নিয়ে নিরিহ একটি পরিবারের উপর হামলা চালিয়েছে একটি প্রভাবশালী মহল। এঘটনায় দুই জন আহত হয়েছেন।

শনিবার ১ আগস্ট বিকেলে এ ঘটনাটি ঘটেছে। আহতরা হলেন- লালচান তাজপুর টিলার নুহু মিয়ার কলেজ পড়–য়া মেয়ে তাছলিমা জান্নাত ও তার চাচাত ভাই রাসেল মিয়া (২৬)। তাদেরকে হবিগঞ্জ সদর আধুনিক হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে।

স্থানীয় সূত্রে জানা যায়- কলেজ পড়ুয়া তাছলিমার বাড়ীতে যাবার রাস্তার উপর ঝড়ে একটি বাঁশ পড়ে যায়। এতে তাদের বাড়িতে আসা-যাওয়ার অসুবিধা সৃষ্টি হলে বাঁশের মালিক একই গ্রামের আব্দুল্লাহ ও তার ভাই মিজান মেম্বারকে বললে তারা বাঁশ কাটেননি। পরে তাছলিমা নিজেই রাস্তা দিয়ে আসা যাবার সুবিধার্থে বাঁশের মাথাটি কেটে দেন। খবর পেয়ে আব্দুল্লাহ, মিজান মেম্বার, আব্দুল কাইয়ূম, আব্দুর রউফ ও সারাজ মিয়া মিলে দেশিয় অস্ত্রপাতি নিয়ে তাদের উপর হামলা চালায়। এতে তাছলিমার চোখের নিচে মারাত্মক আঘাত হয় এবং তার চাচাত ভাই রাসেল মিয়ার মাথায় ও হাতে আঘাত পায়।

স্থানীয় অনেক মানুষের অভিযোগ- মিজান মেম্বার পূর্ব একাধিকবার তাছলিমার পরিবারকে নানাভাবে নির্যাতন করে আসছে। স্থানীয় গণ্যমান্য লোকজন সালিশে নিষ্পত্তি করে দিলেও মিজান মেম্বার তাদের উপর নির্যাতন করেই যাচ্ছেন।

স্থানীয় ওয়ার্ডের মহিলা মেম্বার আইয়ূব চান বলেন, খবর পেয়ে ঘটনাস্থলে গিয়েছি। যারা আঘাতপ্রাপ্ত হয়েছেন তাদেরকে হাসপাতালে প্রেরণ করে মিজান মেম্বারের সাথে যোগাযোগের চেষ্টা করেছি তাকে বাড়িতে পাইনি।

স্থানীয় ওয়ার্ডের মেম্বার মাহফুজ আহমেদ জানান- খবর পেয়ে ঘটনাস্থলে গিয়ে তাছলিমা ও তার চাচাত ভাইকে আহত দেখে হাসপাতালে যাবার পরামর্শ দেই এবং মিজান মেম্বারের সাথে ফোনে যোগাযোগ করলে জানতে পারি মেম্বারের ভাই ও ছেলে আঘাতপ্রাপ্ত, তবে তাদের দেখিনি ।

শেয়ার করুন

Sylhet24Live.Com কর্তৃক সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত।
Design & Developed BY POS Digital