মঙ্গলবার, ২০ অক্টোবর ২০২০, ১১:৪১ অপরাহ্ন

সর্বশেষ সংবাদ
বিশ্বনাথে ইউপি সদস্যের বিরুদ্ধে বয়স্ক ও প্রতিবন্ধী ভাতা আত্মসাতের অভিযোগ ছাতকে নানান অায়োজনে উদয়ন রক্তদান সমাজ কল্যাণ সংস্থার প্রতিষ্ঠা বার্ষিকী উদযাপন সতিনপো’র রডের ঘাই’য়ে রক্তাক্ত সত মা ছাতকে পূজা কমিটির নেতৃবৃন্দের সাথে থানা পুলিশের মতবিনিময় ছাতকে নারী নির্যাতন ও ধর্ষণ বিরোধী সমাবেশ অনুষ্ঠিত রোববার থেকে সারাদেশে ইন্টারনেট ও ক্যাবল টিভি সংযোগ তিন ঘণ্টা করে বিচ্ছিন্ন থাকবে দু’দফা বৈঠকের পর স্বাভাবিক হল সুনামগঞ্জ-সিলেটের অটো চলাচল প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনাকে ধন্যবাদ জানিয়ে যুক্তরাষ্ট্র ছাত্রলীগের আনন্দ সমাবেশ সিলেটের ফেঞ্চুগঞ্জে অপহরণ ও ধর্ষণ মামলায় গ্রেপ্তার যুবক ঘুষ-দুর্নীতি ঢাকতে উপ-সহকারী কর্মকর্তা রঞ্জনের নাটক সুনামগঞ্জের প্রবাসীর স্ত্রীকে ধর্ষণের চেষ্টা, থানায় অভিযোগ দায়ের ১৫ অক্টোবরের সমাবেশ সফল করার অাহব্বান মুফতি ক্বাসিমীর দোয়ারাবাজারে তৃতীয় শ্রেণীর কর্মচারী এখন কোটিপতি, নামগঞ্জ-সিলেটে সম্পদের পাহাড় আল্লামা মামুনুল হক ভারপ্রাপ্ত মহাসচিব নির্বাচিত, মুফতি ক্বাসীমীর অভিনন্দন কুলাউড়ার টিলাগাও এ তরুন সনাতনী সংঘ (টিএসএস) এর গুরুকুল জ্ঞানগৃগ (গীতাস্কুল) উদ্ভোদন
গনধর্ষনের মামলায় বিচারকের রায় জাল!

গনধর্ষনের মামলায় বিচারকের রায় জাল!

শেয়ার করুনঃ

সিলেট২৪লাইভ ::  গণধর্ষণ মামলায় বিচারকের রায় বদলে দিলেন আসামি।

আজ থেকে ৮ বছর আগে অস্ত্রের মুখে গণধর্ষণের শিকার হন ঝিনাইদহের নার্গিস বেগম। এরপর গণধর্ষণের ভিডিও ধারণ করে নার্গিস বেগমকে আসামিরা ব্ল্যাক মেইল করতে থাকে । টাকা না দেয়ার কারণে ধর্ষণের ভিডিও সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ছড়িয়ে দেয় আসামিরা। এর কারণে আত্মহত্যা করেন নার্গিস বেগম।

এ ঘটনার কারণে করা মামলায় গতবছর চার আসামিকে যাবজ্জীবন কারাদণ্ড দেন আদালত। এরমধ্যেই আসামি কবির বিশ্বাস খালাস চেয়ে হাইকোর্টে আপিল করেন। আদালতে জমা দেয়া আবেদনে দেখা যায়, ধর্ষণের অভিযোগ প্রামাণিত হওয়ার পরও তাকে ৭ বছরের কারাদণ্ড দেয়া হয়। বিষয়টি খটকা লাগে আদালতের। রায় প্রদানকারী বিচারককে শোকজ করে জানা যায়, যাবজ্জীবনের রায় পাল্টিয়ে ৭ বছর দেখানো হয়েছে।

কারারক্ষীদের সহায়তা জেলে বসে রায় জালিয়াতি করার এ ঘটনা ধরা পড়েছে উচ্চ আদালতে। আদালত বিস্ময় প্রকাশ করে, জালিয়াত চক্রের ৪ সদস্যের বিরুদ্ধে মামলা করার নির্দেশ দিয়েছেন।

আইনজীবী বলেন,আসামি কবিরের বয়স ৬৫ বছর, তার বয়স বিবেচনায় তার সাজা ৭ বছর করা হয়েছিল, যেখানে ৭ বছর সাজা দেয়ার কোন উপায় নেই। আদালত সন্দিহান হয়ে রায় প্রদানকারী বিচারককে শোকজ করেন।

জানা যায়, যাবজ্জীবনের রায় পাল্টিয়ে ৭ বছর দেখানো হয়েছে।আইনজীবীরা জানান, এ জালিয়াতির সঙ্গে দুজন কারারক্ষী ও একজন তদবিরকারী জড়িত। উচ্চ আদালত আদেশ দেন, তাদের বিরুদ্ধে মামলা করার।
আরেকজন আইনজীবী বলেন, কোর্টে যখন ৭ বছর সাজা দেয়া হয়, তখন আদালত সন্দেহ করেন। পরে খোঁজ খবর নিয়ে জানা যায় এত বড় মিথ্যাচার।
রায় জালিয়াতির ঘটনায় বিস্ময় প্রকাশ করেছেন উচ্চ আদালত। যদিও জামিন ও রায় জালিয়াতির ঘটনা নতুন নয় উচ্চ আদালতে।

শেয়ার করুন

Sylhet24Live.Com কর্তৃক সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত।
Design & Developed BY POS Digital