বৃহস্পতিবার, ২৬ নভেম্বর ২০২০, ০৫:০১ পূর্বাহ্ন

সর্বশেষ সংবাদ
ভক্তদের কাঁদিয়ে না ফেরার দেশে পাড়ি জমালেন কিংবদন্তি ফুটবলার বিদ্যালয়ের জায়গা জোরপূর্বক দখল ও চারা রোপন কৈতক ট্রমা সেন্টার নির্মাণ কাজের উদ্বোধন করেন এমপি মানিক ছাতকে কুইজ প্রতিযোগিতায় বিজয়ীদের মধ্যে পুরস্কার বিতরণী সম্পন্ন জমির খাজনা অনলাইনে ছাতক উত্তর সুরমা প্রবাসী কল্যাণ সোসাইটির অাত্মপ্রকাশ ছাতকে অানুষ্টানিক ভাবে উদ্বোধন হলো খাঁজা ট্রাভেলস যদি আমাকে ভালোবাসিস, তবে সুরা ইয়াসিন পড়ে দোয়া করিস সুনামগঞ্জ জেলা আইনশৃঙ্খলা কমিটির সভা অনুষ্ঠিত তাহিরপুরে পরিবেশ ও হাওর উন্নয়ন সংস্থার উদ্যোগে বৃক্ষরোপণ তাহিরপুরে মাদ্রাসায় নিয়োগে অনিয়ম- ৩০ লক্ষ টাকা ঘুষের অভিযোগ  দোয়ারাবাজার উপজেলা নির্বাহী অফিসার করোনায় আক্রান্ত সুনামগঞ্জের দোযারাবাজারে ধর্ষণের অভিযোগে ধর্ষক আটক(১) সাংবাদিক আরিফুর রহমানের পিতার মৃত্যুতে শোক প্রকাশ জন প্রশাসনের অতিরিক্ত সচিবের সাথে মতবিনিময়
বিয়েকে সহজ করুন, জিনাকে কঠিন করুন

বিয়েকে সহজ করুন, জিনাকে কঠিন করুন

শেয়ার করুনঃ

 

বিয়ের মতো একটা পবিত্র জিনিস নিয়ে কেহ তামাসা করবেন না। প্রিয় নবীজি বলেছেন বিয়েকে সহজ করে দাও আর জিনাকে কঠিন করে দাও।আমার করছি ইহার উল্টো। অতচ নিজেকে মোসলিম দাবি করি। সমাজের কালচার দেখে মনে হয় পিতা মাথা কন্যা সন্তান জন্ম দিয়ে বড় অন্যায় করে ফেলেছেন। অতচ একটা কন্যা সন্তানের বিনিময়ে আল্লাহ জান্নাতে একটি ঘড় নির্মাণ করে দেন।আল্লাহর দেয়া সেই রহমতকে আমাদের সমাজ ব্যবস্থা গজবে পরিনত করেছে। প্রিয় নবিজি বলেছেন সাক্ষিরা ও গার্জিয়ানদের মাধ্যমে সিমিত পরি সরে বিয়ে সম্পর্ন করো এবং সামর্থ অনুসারে ওলিমা করো অতচ আমরা করি উল্টো, বিয়ে বর যাত্রী কয়েকশ বা হাজার না হলে হবেনা। আল্লাহ বলেছেন বিয়ে হালাল করার জন্য দেন মোহর দাও, প্রিয় নবিজি দেন মোহর দেবার নিয়ম দেখিয়েছেন, দেন মোহর হবে ছেলের সামর্থ্যের উপর আমার তার উল্টো কাবিনের নামে কয়েক লাখ টাকা চাপিয়ে দেই। আবার অনেকে কাবিনের ব্যবসা শুরু করে দিয়েছেন। নবিজি বলেছেন বিয়েতে অপচয় করবেননা কিয়ামতের দিন এই অপচয়ের হিসাব দিতে হবে আমরা করি তার উল্টো বিয়ের শাড়ির নামে একটা শাড়ির জন্য কয়েক হাজার বা লাখ করচ করিয়ে দেই বরের। গায়ে হলুদের নামে অন ইসলামিক কাজ করি। গহনার নামে রিন গ্রস্থ করাই। এর পড় রয়েছে ফিরা যাত্রার নামে আরো কয়েক হাজার টাকার খরচা। বিয়েতে হিয়র কাটা, ফার্নিচার, মটর সাইকেল, প্রাইভেট কার, বা নগদ টাকা নামের অনেক যৌতুক অতচ ইসলামের কোথাও এসব নেই। বরং ইসলাম ইহাকে হারাম বলেছে। উপহার দেয়া সুন্নত আর গ্রহণ করা ওয়াজিব। যদি কনের পিতা বা পক্ষ খুসি হয়ে কোন কিছু কন্যা কে বা জামাইকে উপহার দেন তাহলে গ্রহন করা উচিৎ। কিন্তু যদি কোন ভাবে কেহ এই উপহার দেবার জন্য হিংস দেন তাহলে এটা হারামের অন্তর ভুক্ত হবে। সামর্থ্য বানদের জন্য আল্লাহ চারটি বিয়ের অনুমতি দিয়েছেন যদি সব স্থীর ক্ষেত্রে সমতা রক্ষা করতে পারেন। অতচ আমরা তার উল্টো চারটি চারশোটি মেয়ের সাথে জিনা করতে পারেন স্থীদের আপত্তি নেই কিন্ত ২য় বিয়ের নাম সুনলেই ঘড়ে আগুন জ্বলে। স্বামি যদি ব্যবিচারে লিপ্ত হয়ে জাহান্নামে যায় তাহলে স্ত্রীও তাহার সঙ্গী হবে।তাই জাহান্নাম থেকে উভয়ে বাচতে হালাল পথে চলতে হবে এবং ইহার অনুমতি দিতে হবে।
অনেকে বলতে পারেন আমিয়ে এসব বলছি নিজেকি তাহা মেনেছি? হা আমি আমার জীবনে প্রয়োগ করেছি আর পড় বলছি।
আল্লাহ আমাদের সবাইকে হেদায়েত দান করুন, সঠিক বুঝ দান করুন এবং যে পথে চললে আল্লাহ ও আল্লাহর হাবিব খুসি হন সেই পথে পরিচালিত করুন। আমিন, ছুম্মা আমিন।

শেয়ার করুন

Sylhet24Live.Com কর্তৃক সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত।
Design & Developed BY POS Digital