শনিবার, ২৬ সেপ্টেম্বর ২০২০, ০৩:৩৬ পূর্বাহ্ন

সর্বশেষ সংবাদ
ছাতকে ডাকাত আরশ আলী গ্রেফতার ড্রাই প্রসেসের মাধ্যমে ছাতক সিমেন্ট কারখানাকে লাভজনক শিল্প প্রতিষ্ঠানে পরিনত করা হচ্ছে–উপাধ্যক্ষ আব্দুস শহিদ এমপি এয়ারপোর্ট থানায় জিডি করলেন আবুল বশর অপু ছাতকে এনআরবিসি ব্যাংকের শাখা উদ্বোধন গনধর্ষনের মামলায় বিচারকের রায় জাল! আল্লামা শাহ আহমদ শফির মৃত্যুতে ছাতকে উৎসর্গ ফাউন্ডেশনের শোক আল্লামা আহমদ শফির মৃত্যুতে ইউনাইটেড উলামা কাউন্সিলের শোক দুর্গাপূজায় ৩ দিনের ছুটির দাবিতে সিলেটে মানববন্ধন আল্লামা আহমদ শফির মৃত্যুতে বাংলাদেশ খেলাফত মজলিস যুক্তরাষ্ট্র শাখার শোক দোয়ারায় নরসিংপুর বাজারে ইসলামী ব্যাংকের এজেন্ট ব্যাংকিং উদ্বোধন ছাতক থেকে একজন যোগ্য মানুষের বিদায়- সাংবাদিক তানভীর ঘুষ-দুর্নীতির ‘রসের হাঁড়ি’ শ্রীপুর উত্তর ইউনিয়ন ভূমি অফিস অামি অান্তরিকতার সহিত কাজ করার চেষ্টা করেছি- বিদায়ী ওসি মোস্তফা কামাল বাউল সম্রাট শাহ্ আব্দুল করিমের প্রয়ান দিবসে জেলা প্রশাসনের শ্রদ্ধাঞ্জলী নবীগঞ্জে ৪’শ পিস ইয়াবাসহ গ্রেপ্তার একজন
জননেতা শফিকুর রহমান চৌধুরী ও কিছু কথা

জননেতা শফিকুর রহমান চৌধুরী ও কিছু কথা

শেয়ার করুনঃ

 

ডেক্স নিউজঃ ৭৫ এর ১৫ই আগষ্টের পর যারা রাজপথ প্রতিবাদে উত্তাল করেছিলেন– আলহাজ্ব শফিকুর রহমান চৌধুরী তাঁদেরই একজন।
দলের সিদ্ধান্তকে মাননীয় নেত্রীর সিদ্ধান্তকে সম্মান জানাবার মানসিকতা আছে বলে দু’দুবার বিজয় নিশ্চিত জেনেও সিলেট -২ আসনে নির্বাচন না করার একটাই কারন ছিল দলকে ভালবাসি ক্ষমতাকে নয়, বঙ্গবন্ধুর আদর্শের আওয়ামী লীগ করি এমপি হওয়ার জন্য নয়। আওয়ামী লীগ রক্ষা করতে হবে, আওয়ামী লীগ থাকলে সবাই থাকবেন। এমন গল্প আলহাজ্ব শফিকুর রহমান চৌধুরী’র মুখ থেকে শুনেছেন সিলেট জেলা আওয়ামী লীগ পরিবারের সবাই। ফজরের নামাজের পর থেকে আরেক ফজরের ওয়াক্ত পর্যন্ত দলের নেতাকর্মী কে সময় দেন বলে জনগণ নাম দিয়েছেন ২৪ ঘন্টার রাজনীতিবিদ। গ্রাম থেকে শুরু করে সর্বস্তরের নেতা-কর্মীর সুখ-দুঃখ শুনেছেন গভীর ভাবে। একজন সকলের মন রক্ষা করতে পারেনা এটা চরম সত্য তবুও কিছু মানুষ এই সময়টাকে পুঁজি করে। ২০০১ সাল থেকে ২০০৬ সাল পর্যন্ত আওয়ামী লীগ পরিবারের উপর যখন অমানবিক অত্যাচার নির্যাতন নিপীড়ন চলছিল তখন অনেক প্রভাবশালী নেতারা চামড়া বাচাতে লিয়াজু করেছেন অথচ মাঠে সাধারণ কর্মী হয়েছে নির্যাতিত। যুক্তরাজ্য আওয়ামী লীগ এর যুগ্ম-সাধারণ-সম্পাদক এবং যুক্তরাজ্য বাংলাদেশ ওয়েলফেয়ার এসোসিয়েশন এর সভাপতি ও প্রবাসী বাংলাদেশি দের একজন শক্তিশালী প্রতিনিধি ছিলেন আলহাজ্ব শফিকুর রহমান চৌধুরী। দেশে আসা যাওয়ার এক পর্যায়ে স্থায়ী ভাবে স্বদেশে বসবাস এর সিদ্ধান্ত গ্রহন করেই নির্যাতিত কর্মীদের পাশে দাঁড়ান শফিকুর রহমান চৌধুরী । ১/১১ যারা নেত্রীর বিরুদ্ধে ষড়যন্ত্র শুরু করেছিল- তাদের বিরুদ্ধে বিপ্লবী ভূমিকা রেখে শেখ হাসিনা’র সিদ্ধান্ত এটাই চুড়ান্ত এই শ্লোগান সামনে রেখে নেতাকর্মী কে সাথে নিয়ে সকল প্রতিকূলতা কাটিয়ে দীর্ঘদিন কারাবরণ করে ২০০৮ সালে সিলেট ২ আসনে শেখ হাসিনাকে চ্যালেঞ্জ করা বিএনপির প্রার্থী এম. ইলিয়াছ আলী কে বিপুল ভোটের ব্যবধানে পরাজিত করে বিজয়ী হয়ে জননেত্রী শেখ হাসিনাকে সিলেট ২ আসন উপহার দিয়েছিলেন। রাজনীতি’তে চাওয়ার পাওয়ার আয়োজন আছে এটা যেমন সত্য না পাওয়ার বেদনা আছে এটাও সত্য, ঠিক তেমনি সত্য যারা আত্মত্যাগ করে তাদের হিসাবেও অনেক মর্যাদা অপেক্ষা করে। মাননীয় নেত্রীর কানে আমাদের দূর্বল আওয়াজ পৌঁছাবার কোনো সুযোগ নাই তবুও বলছি – আলহাজ্ব শফিকুর রহমান চৌধুরী আপনার সিদ্ধান্তে কুরবান হলেও এটা সাদরে গ্রহন করবেন প্রমানিত সত্য। গ্রুপিং ধন্ধে স্বার্থের ধন্ধে আলহাজ্ব শফিকুর রহমান চৌধুরীর বিরুদ্ধে অনেক কিছু শুনি দেখি, অবাক হই যারা সিলেট শহরে গিয়ে জুনিয়রদের ভাই বলে ডাকাডাকি করতেন তাদের কে গুরুত্বপূর্ণ স্থানে নেওয়ার পর এরাই নিজের ব্যক্তিত্বের দাম্ভিকতা দেখায় উনার বিরুদ্ধে। যাই হউক কেউ যদি উপকার অস্বীকার করে সে কে সেটা আপনারা ভাল বুঝেন। আলহাজ্ব শফিকুর রহমান চৌধুরী মানুষ উনার ভুলত্রুটি থাকতে পারে এটা স্বাভাবিক, কিন্তুু যারা ভুলত্রুটি কে পুজি করে রাজনীতির মাঠ দখল করতে চান আপনারাও মনে রাখবেন সফলতার মাঝেও ব্যর্থতা লুকিয়ে থাকে। সিলেট জেলা আওয়ামী লীগে’র সাধারণ-সম্পাদক নির্বাচিত হওয়ার পর থেকে সিলেটের আওয়ামী লীগ পরিবারের সুখে-দুঃখে পাশে ছিলেন আছেন থাকবেন। রাজনৈতিক অঙ্গনে এত বিশাল অর্জন সত্যি আমাদের জন্য মহা গৌরবের। আমার রাজনৈতিক অভিভাবক, আমার রাজনৈতিক শিক্ষাগুরু জননেতা আলহাজ্ব শফিকুর রহমান চৌধুরী ভুল শুদ্ধ সব মিলিয়ে যদি আওয়ামী লীগ এর জন্য কাজ করে থাকেন, যদি নেতাকর্মী কে রাতদিন সময় দিয়ে থাকেন তাহলে অবশ্য আপনাদের সুচিন্ত রায় প্রদান করবেন। আওয়ামী লীগ এর জন্য আলহাজ্ব শফিকুর রহমান চৌধুরী যা করেন তা প্রতিদানের প্রত্যাশায় করেন না এটা বাস্তব সত্য মনোনয়ন পেয়েও দলের স্বার্থে দেশের স্বার্থে পিরিয়ে দেওয়া। এই দলপ্রেম কে অনুভব করলে বিনা প্রতিধ্বন্দীতায় বিজয়ী করার আশা রাখতে পারি বিশ্বাসের সাথে। ওয়ার্ড, ইউনিয়ন, উপজেলা, জেলা যে যেখান থেকে ডাক দিয়েছেন দিচ্ছেন উনি উপস্থিত থাকছেন সবকটি হয়তো সবার ইচ্ছা মত না হতে পারে কিন্তুু উনি পাশে আছেন। আওয়ামী লীগ ২১ বছর ক্ষমতার বাহিরে ছিল এই বছর গুলোত যারা দল কে রক্ষা করার জন্য বঙ্গবন্ধুর আদর্শ লালন করে রাজপথে আন্দোলন সংগ্রাম চালিয়ে গেছেন আলহাজ্ব শফিকুর রহমান চৌধুরী সেই সংগ্রামী মিছিলের অগ্র সৈনিক ছিলেন। এখন অনেকেই চিন্তে পারবেন না কারন এখন সুখের সময় আর সুখের সময় কে আপন কে পর চেনা যায়না—। সিলেট জেলা আওয়ামী লীগ পরিবার বাংলাদেশ এর রাজনীতিতে সকল সময়ে ঐতিহাসিক ভূমিকা পালন করেছেন আগামীতে এই ভূমিকা অব্যাহত থাকবে আমরা বিশ্বাস করি। জননেতা আলহাজ্ব শফিকুর রহমান চৌধুরী’র রাজনৈতিক সফলতা আমাদের জন্য গৌরবের ও মর্যাদার এতে কোনো সন্দেহ নাই। যুক্তরাজ্য থেকে এখন ফোন না দিলেও ডিজিটাল বাংলাদেশ থেকে ফোন দেওয়া যায় সহজে কিন্তুু একসময় এই সহজ যোগাযোগ ছিলনা, টেলিফোনে আপনজনের খবরও নেওয়া হতনা গুরুত্বপূর্ণ কাজ ছাড়া, সেই সময় আলহাজ্ব শফিকুর রহমান চৌধুরী দেশবিদেশের সবার সাথে যোগাযোগ রেখেছেন এই দিনগুলোর মূল্যায়ন অবশ্যই দলের নেতাকর্মীর কাছ থেকে আসবে। আমরা আমাদের নেতাকে নিয়ে একটি বিষয় সুনিশ্চিত জননেত্রী শেখ হাসিনা’র সিদ্ধান্তের বাহিরে যাবেন না, শেখ হাসিনা’র সাথে বেইমানি করবেন না।

উদয়ের পথে শুনি কার বাণী
ভয় নাই ওরে ভয় নাই।
নিঃশেষে প্রাণ যে করিবে দান
ক্ষয় নাই তার ক্ষয় নাই।….

লিখেছেনঃ মিয়াদ আহমদ, ছাত্রলীগ নেতা।

শেয়ার করুন

Sylhet24Live.Com কর্তৃক সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত।
Design & Developed BY POS Digital